হেলথ এসিস্ট্যান্টদের দাবী মানা না হলে হাম রুবেলা টিকা প্রদান কার্যক্রম বন্ধের আশংকা

প্রকাশিত: ২:৩৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২, ২০২০

হেলথ এসিস্ট্যান্টদের দাবী মানা না হলে হাম রুবেলা টিকা প্রদান কার্যক্রম বন্ধের আশংকা

বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবীতে ২৬ নভেম্বর ২০২০ থেকে লাগাতার কর্মবিরতিতে আছেন সারা দেশের প্রাউ ২৬ হাজার স্বাস্থ্য সহকারী,সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য পরিদর্শক।এতে দেশের প্রায় ১ লক্ষ ২০ হাজার টিকাদান কেন্দ্র বন্ধ রয়েছে।ভোগান্তিতে পড়েছেন টিকা নিতে আসা লক্ষ লক্ষ শিশু এবং অভিভাবক।

কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আজ ৬ষ্ট দিনের মত কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা কমপ্লেক্সের সামনে কর্মবিরতী পালন করছেন
স্বাস্থ্য সহাকারী,সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য পরিদর্শকগন।

এতে করে উপজেলার ৮০টি টিকাদান কেন্দ্র বন্ধ রয়েছে। টিকা কেন্দ্র বন্ধ থাকায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ফেরত যাচ্ছেন টিকা নিতে আসা শিশু, ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন অভিভাবকরা।কর্মবিরতী পালনকারীদের দাবী ১৯৯৮ খ্রিস্টাব্দে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা, ২০১৮ খ্রিস্টাব্দে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর ঘোষণা এবং অত্র বছরের ২০ ফেব্রুয়ারিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর লিখিত প্রতিশ্রুতি এখনো বাস্তবায়ন করা হয়নি।

স্বাস্থ্য পরিদর্শকদের দাবী স্বাস্থ্য পরিদর্শক-১১ তম গ্রেড,সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক-১২ তম গ্রেড এবং স্বাস্থ্য সহকারী ১৩ গ্রেড প্রদান করে নিয়োগ বিধি সংশোধন সহ দ্রুতই বেতন বৈষম্য নিরসন করা হোক।

উল্লেখ্য যে,আগামী ৫ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া হ রুবেলা টিকাদান কার্যক্রম বন্ধ হওয়ার আশংকা রয়েছে।এতে হাম রুবেলা টিকা প্রাপ্তি থেকে প্রায় ৩ লক্ষ ৪০ হাজার শিশু বঞ্চিত হওয়ার আশংকা রয়েছে। কর্ম বিরতি পালনরত হেলথ এসেস্ট্যান্টদের ন্যায্য দাবী মেনে নিয়ে প্রজ্ঞাপন না পর্যন্ত এই আন্দোলন চলবে বলে জানান দাবী আদায় পরিষদ কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা শাখার আহবায়ক স্বাস্থ্য সহকারী হাসিব আহমদ।

তিনি আরো বলেন,দাবী আদায়ের আগ পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন,দাবী আদায় বাস্থবায় পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল মতি,আমিনুর রহমান,সদস্য সচিব দুলাল আহমদ, সদস্য রীনা রানী শর্মা,পারভীন বেগম,স্বরস্বতি মন্ডল,শুনীল ভাস শুভ্র,বুরহান উদ্দিন,রাশিদা আক্তার,শিবানী চক্রবর্তী প্রমুখ।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ