জাফলংয়ে ফটোগ্রাফার হত্যায় জড়িত দুই যুবক আটক

প্রকাশিত: ৪:৪৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৬, ২০২০

জাফলংয়ে ফটোগ্রাফার হত্যায় জড়িত দুই যুবক আটক

আসাদুল হক , গোয়াইনঘাটঃ
আজ ৬ ডিসেম্বর ( রোববার) দুপুরে সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার পর্যটন কেন্দ্র জাফলংয়ের জিরো পয়েন্ট এলাকার অদূরে মায়াবী ঝর্ণায়
পর্যটক বেশে আসা দুই যুবকের হাতে নির্মম ভাবে খুন হন ফটোগ্রাফার উজ্জল মিয়া (১৮)। সে গোয়াইনঘাট
উপজেলার রসুলপুর গ্রামের আব্দুস ছাত্তারের ছেলে এবং স্থানীয় জাফলং আমির মিয়া স্কুল এন্ড কলেজের
৬ষ্ট শ্রেনীর শিক্ষার্থী। (৬ ডিসেম্বর) রবিবার দুপুরে ২ টার দিকে এ হত্যাকান্ডটি
ঘটে। গণমাধ্যমকর্মী ও স্থানীয়দের মাধ্যমে উক্ত ফটোগ্রাফার হত্যার বিষয়ে অবগত হয় গোয়াইনঘাট থানা পুলিশ। খবর পেয়ে একদল পুলিশ নিয়ে তাৎক্ষণিক ভাবে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন গোয়াইনঘাট সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ নজরুল ইসলাম ও গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ । অপর দিকে সিলেটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন (পিপিএম) জাফলংয়ের ফটোগ্রাফার উজ্জল মিয়া (১৩) হত্যায় জড়িত সুনামগঞ্জ জেলার শান্তিগঞ্জ উপজেলার ধরমপুর গ্রামের সৈয়দ নুরের ছেলে এহসান (২২) ও একই গ্রামের সুরুজ মিয়ার ছেলে খসরু মিয়া (১৮)কে গ্রেপ্তারের জন্য বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করতে গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জকে নির্দেশ দেন। এসপি ফরিদ উদ্দিনের নির্দেশে গোয়াইনঘাট থানাধীন জাফলং এলাকার প্রতিটি প্রবেশ ও বহির্গমণ পথে পুলিশি কড়া নজরদারি ও যাত্রী বাহী গাড়ীতে চেকপোস্ট বসানো হয়। পাশাপাশি জৈন্তাপুর উপজেলার জৈন্তাপুর বাজার,দরবস্ত বাজার,সারীঘাট,হরিপুর ও শাহপরান বাইপাস মহাসড়কে থানাপুলিশ ও ট্রাফিক পুলিশ যৌথভাবে চেকপোস্ট বসানো হয়। এছাড়া গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ জাফলংয়ের স্থানীয় ফটোগ্রাফারদের নিকট থেকে হত্যাকান্ডে জড়িত
পর্যটক বেশে আসা ওই দুই যুবকের শারিরীক গঠন প্রণালী ও পোশাক আশাক সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে প্রতিটি চেকপোস্টে বেতার ও মোবাইলে বার্তা পাঠান। পুরো জাফলং ও জৈন্তাপুর উপজেলায় পুলিশি চেকপোস্ট বসানো ও পুলিশি ফাঁদ সম্পর্কে ওই দুই যুবক অবগত হয়ে জাফলং থেকে পালিয়ে যাওয়ার জন্য তার কৌশলে একটি ট্রাক যোগে জাফলং ত্যাগ করার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। জাফলং গুচ্ছ গ্রাম পয়েন্টে ট্রাক যোগে আসা হত্যাকান্ডে জড়িত দুই যুবকের ট্রকটিকে চেকপোস্টে থাকা পুলিশেরা থামানোর জন্য অনুরোধ করলে ট্রাক চালক চেকপোস্ট অতিক্রম করে পালিয়ে যাওয়ার অপপ্রচেস্টা চালায়। গুচ্ছ গ্রাম সংলগ্ন এলাকায় থাকা অপর একটি পুলিশের চেকপোস্ট গাড়ি গতিরোধ করলে গাড়ির মধ্যে অবস্থান কারী ওই দুই যুবক পালিয়ে যাওয়ার চেস্টা করলে চেকপোস্টে অবস্থানরত গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ, এসআই কাওছার ও এএসআই মারুফ তাদের পাকড়াও করে গ্রেপ্তার করেন। গাড়িতে উঠার আগে ওই দুই যুবক তাদের পোশাক আশাক পরিবর্তন করে এবং একটি ব্যাগের মধ্যে তা রক্ষিত রাখে। কিন্তু তাদের ব্যবহারকৃত ব্যাগ থেকে নিহত ওই কিশোরের মোবাইল, ক্যমেরা এবং তাদের ওঠানো সকল ছবি পাওয়ায়। এ ঘটনায় ট্রক চালক সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার নওয়াগাওঁ গ্রামের নুর মিয়ার ছেলে রায়হান ও একই গ্রামের আলী নুরের ছেলে অলিউর রহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
এব্যপারে গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ বলেন, পর্যটন কেন্দ্র জাফলংয়ে কিশোর ফটোগ্রাফার উজ্জল হত্যায় জড়িত দুই যুবক ও ট্রাক চালক এবং হেলপারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। দুপুরে পর্যটক বেশি দুই যুবক জাফলংয়ের কিশোর ফটোগ্রাফার উজ্জলকে এলোপাতাড়ি মারধর করে এ ঘটনায় বিকাল ৩ টার দিকে জৈন্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেে চিকিৎসাধীন অবস্থায় উজ্জ্বল মারা যায়। সিলেটের মান্যবর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম মহোদয়ের দিক নির্দেশনা ও তাঁর পাতানো কৌশল অবলম্বন করে শেষ পর্যন্ত উক্ত হত্যাকান্ডে জড়িত দুই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পাশাপাশি হত্যাকারীদের পালাতে সহায়তা কারী ট্রাক চালক ও হেলপারকে গ্রেপ্তার করা হয়।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ