বেতন বৈষম্য নিরসন দাবিতে গোয়াইনঘাটে স্বাস্থ্য সহকারীদের কর্মবিরতি অব্যাহত

প্রকাশিত: ৪:৩৮ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৬, ২০২০

বেতন বৈষম্য নিরসন দাবিতে গোয়াইনঘাটে স্বাস্থ্য সহকারীদের কর্মবিরতি অব্যাহত

আসাদুল হক , গোয়াইনঘাটঃ

বেতন বৈষম্য নিরসন ও নিয়োগ বিধি সংশোধনের দাবিতে ৬ ডিসেম্বর (রবিবার) দশম দিনের মতো কর্ম বিরতি পালন করছেন সারাদেশের স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীরা। এই ধারাবাহিক কর্মবিরতির অংশ হিসাবে সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে, বাংলাদেশ হেলথ অ্যাসিস্ট্যান্ট এসোসিয়েশনের ব্যানারেও কর্মবিরতি পালন করা হয়েছে।
এ সময় বাংলাদেশ হেলথ এসিস্ট্যান্ট এসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, সিলেট জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও গোয়াইনঘাট উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোঃ বাদল মিয়া, দাবি বাস্তবায়ন পরিষদের সদস্য স্বাস্থ্য পরিদর্শক (ইনচার্জ) নিখিল চন্দ্র দাস,সিলেট জেলা দাবী বাস্তবায়ন পরিষদের সদস্য ও সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক আব্দুল হামিদ,
ধ্রুব কান্ত চৌধুরী, স্বাস্থ্য পরিদর্শক।সুকুমার পাল,সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক। প্রনজিত পাল,সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক। মোশাররফ হোসেন, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক। শৈলেশ চন্দ্র দাস, সহকারী স্বাস্থ্য সহকারী আব্দুল হামুদ,সুরেন্দ্র রাম শুক্লবৈদ্য,জিতেন্দ্র কুমার দাস, দেবব্রত ধর,শাহাব উদ্দিন, অনিমা চক্রবর্তী,শফিকুল ইসলাম, রুহেল আমিন, ভুট্টু চন্দ্র দাস, মতিউর রহমান, আব্দুস শুকুর, অমলকান্তি ভ্রমন,জিল্লুর রহমান, আবুল কালাম,বাদল মিয়া,ইব্রাহিম আলী, রজকিশোর,সুলতান মিয়া,রাবিয়া আক্তার, সমরেন্দ্র চক্রবর্তী,জুলকাস আলী, মামুন রশীদ, আবুল হাসনাত,আব্দুল বারী,রেহেনা খাতুন, এএইচ এম,রাসেল,মনির উদ্দিন আহমদ, কয়ছর আহমদ, নিবাস চন্দ্র দাস, সালমা বেগম, দেবব্রত দাস,অলক চৌধুরী, ইমাম উদ্দিন, সাহিদা আক্তার,আব্দুল মতিন, ফয়েজ আহমদ রিপন,আব্দুল লতিফ চৌধুরী, আহমেদ রহমান, তাজুল ইসলাম।
এদিন বক্তারা নিয়োগবিধি সংশোধনসহ ক্রমানুসারে স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীদের বেতন ১১,১২,১৩ তম গ্রেডে উন্নিত করনের জোরালো দাবি জানান।
তাদের দাবিসমূহ নিম্নরূপ:১.নিয়োগবিধি সংশোধন করে শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচএসসি বা সমমানের পরিবর্তে স্নাতক বা সমমানের রাখতে হবে।
২.ক্রমানুসারে স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীদের বেতন ১১,১২,ও ১৩ তম গ্রেড প্রদান।
৩.স্বাস্থ্য সহকারীদের পদে প্রবেশের পর প্রশিক্ষন শেষে টেকনিক্যাল বেতন ১১ তম গ্রেড প্রদান করতে হবে।
তারা বলেন, দীর্ঘ দিন যাবৎ তারা বেতন বৈষম্যর স্বীকার হয়ে আসছেন। বাংলাদেশ হেলথ্ এ্যাসিস্ট্যান্ট এসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় পরিষদের সভাপতি ও আহ্বায়ক শেখ রবিউল আলম খোকন গত ২০ নভেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে ২৬ নভেম্বর থেকে এ কর্ম বিরতির ঘোষণা দেন। ১৯৯৮ সালের ৬ ডিসেম্বর আমাদের প্রধানমন্ত্রী, মানবতার মা দেশ রত্ন শেখ হাসিনা স্বাস্থ্য সহকারীদের দাবি মেনে নেওয়ার ঘোষণা দেন।২ জানুয়ারি ২০১৮ তৎকালীন স্বাস্থ্য মন্ত্রী আমাদের দাবি মেনে নিয়ে দাবি বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করেন এবং ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০ইং- তারিখে বর্তমান স্বাস্থ্যমন্ত্রী আমাদের দাবি মেনে নিয়ে লিখিত চুক্তি স্বাক্ষর করেন কিন্তু আজও তার বাস্তবায়ন ঘটেনি। এছাড়া তারা উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা, উপসহকারী প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা, উপসহকারী ভূমি কর্মকর্তা ও সম্প্রতি প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের সাথে তাদের বেতন বৈষম্যর কথা উল্লেখ করে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।তারা বলেন গাছের, মাছের সেবা দিয়ে, গরু, ছাগল, হাস, মুরগীর টিকা দিয়ে তারা আজ ১০ গ্রেডে আর আমরা সৃষ্টির সেরা জীব মানব শিশুর ১০ টি মারাত্বক রোগের বিরুদ্ধে টিকা দান করি।এছাড়া ও গর্ভবতী মা ও কিশোরীদের টিকা প্রদান, কমিউনিটি ক্লিনিকে সেবা দান। স্বাস্থ্য শিক্ষা, যক্ষা ও কুষ্ঠ নিয়ন্ত্রণ, করোনার স্যাম্পল কালেকশন, হোম কোয়ারেনন্টাইন নিশ্চিত করছি।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ