জৈন্তাপুরে সূচনার প্রকল্পের কিশোরী সমাবেশ অনুষ্টিত

প্রকাশিত: ৩:৪৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৭, ২০২১

জৈন্তাপুরে সূচনার প্রকল্পের কিশোরী সমাবেশ অনুষ্টিত

জৈন্তাপুর প্রতিনিধিঃ
সিলেটেরে জৈন্তাপুরে এফআইভিডিবি-সূচনা প্রকল্প বাস্তবায়নে উপজেলা পরিষদ মিলনায়াতনে কুইজ প্রতিযোগিতা, বিতর্ক প্রতিযোগিতা, নাটক, গান, ইউনিয়ন ভিত্তিক তাদের সফলতার গল্প উপস্থাপনসহ কিশোরী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
গতকাল ২৭জানুয়ারি মঙ্গলবার সকালে জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদ মিলনায়াতনে কুইজ প্রতিযোগিতা, বিতর্ক প্রতিযোগিতা, নাটক, গান, ইউনিয়ন ভিত্তিক তাদের সফলতার গল্প উপস্থাপন অনুষ্ঠানে মনিটরিং এন্ড ইভ্যালুয়েশন অফিসার দিপংকর দে এর সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদা পারভীন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মো: আমিনুল হক সরকার, উপজেলা কৃষি কর্মর্কতা মো: ফারুক হোসাইস,উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মর্কতা আব্দুল্লা আল মাসুদ, উপজেলা সমাজসেবা কর্মর্কতা এ, কে, আজাদ ভূঁইয়া, উপজেলা একাডেমিক সুপার ভাইজার আজিজুল হক খোকন, সূচনা প্রকল্পের উপজেলা কো-অর্ডিনেটর আবু বকর শিকদার, ইউনিয়ন কো-অর্ডিনেটর বিশ্বজিৎ কুমার দাশ অতিরিক্ত ইউনিয়ন কো-অর্ডিনেটর আবু বক্কর সিদ্দকী, প্রকিউরম্যান্ট এন্ড আইজিএ অফিসার সাইফুল ইসলাম, ইউনিয়ন কো-অর্ডিনেটর শামিম আহমদ, নিউট্রেশন অফিসার মাসুদ পারভেজ, জিসিডিও শামছুন্নাহার কনা, সমাবেশে কিশোরী পিয়ার লিডারদেরকে নিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচী করা হয়।
স্বাগত বক্তব্যে- সেভ দ্যা চিলড্রেনের এডোলোসেন্ট ম্যানেজার শরমিন সুলতানা সূচনা কর্মসূচীর কিশোরী কার্যক্রম তুলে ধরেন এবং কিশোরীসহ উপস্থিত অতিথি বৃন্দকে স্বাগত জানান।

বিশেষ অতিথি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডা: মো: আমিনুল হক সরকার বলেন কিশোরীদেরকে বেশি করে পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে এবং নিয়মতি কমিউনিটি স্বাস্থ্যকেন্দ্র এবং উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্র চিকিৎসা নিতে হবে এবং এই খর্বাকৃতি হার কমানোর জন্য কিশোরীদরে পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার পরামর্শ দেন। তারাই আমাগী দিনের‘ মা’ তিনি বলেন সূচনা প্রকল্পের বিভিন্ন কর্মকান্ড দেখেছি এবং উপস্থিত থেকেছি তা থেকে আমি বুঝতে পেরেছি সূচনা সত্যিকার অর্থে পুষ্টি উন্নয়নে কাজ করতেছে। তিনি কিশোরীদোকে বলেন সূচনা প্রকল্পের মাধ্যমে যে জ্ঞান, দক্ষতা তোমরা অর্জন করেছো তা সমাজের উন্নয়নে মাইলফলক হয়ে থাকবে এবং ভবিষ্যতে তোমাদের ব্যক্তিগত জীবনে কাজে লাগবে। সূচনা প্রকল্প যে, অপুষ্টির চক্র ভাঙ্গবে তার বড় একটি উদাহরন হয়ে থাকবে। তোমরা যারা টিটিটিকা নেওনি তারা দ্রুত টিটিটিকা নিতে হবে। নিয়মিত আয়রন ট্যাবলেট খেতে বলেন। তিনি কিশোরীদের বিভিন্ন সচেতনতা মূলক কর্মকান্ড দেখে খুবই ভালো লেগেছে বলে জানান। মেয়েরা এত সুন্দর করে সমাজের বিভিন্ন কুসংস্কার ও করনীয় তুলে ধরেছে তা যদি সকল স্তরে উপস্থাপন করা যায় তবে পুষ্টি উন্নয়নে গুরুতপূর্ন¡ ভূমিকা পালন করবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপজেল উপজেলা কৃষি কর্মর্কতা মো: ফারুক হোসাইন বলেন- কিশোরীরা হচ্ছে সমাজের চেঞ্জ মেকার। সূচনা প্রকল্পের কিশোরীদের নিয়ে এরকম কার্যক্রম নিঃসন্দেহে পুষ্টি উন্নয়ন কার্যক্রমে ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন ।

সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মর্কতা নাহিদা পারভীন বলেন- কিশোরীদের কৈশরকালীন সময়ে পুষ্টিকর খাবার বেশী করে খেতে হবে। কিশোরীদেরে অভিবাবকদেরকে ছেলে-মেয়েদের সাথে বর্ন্ধত্বসুলভ আচরন করার কাথা বলেন। তিনি নারী ক্ষমতায়নের গুরুত্বের কথা বলেন, কিশোরীদের আত্মরক্ষা শিখানোর জন্য উপজেলায় একটি প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলেন জানান এবং এই রকম একটি সভা কারায় তিনি সূচনাকে ধন্যবাদ জানান ও পুরুস্কার বিতরনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শেষ হয়।

সূচনা প্রকল্পটি অপুষ্টি হ্রাসের মাধ্যমে স্টান্টিং বা খর্বাকৃতি সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে জৈন্তাপুর উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়ন, জৈন্তাপুর ইউনিয়ন পরিষদের সন্তান জম্মদানে সক্ষম সমবয়সী (১৫-৪০ বছর) নারী এবং (১৫-১৯ বছর) বয়সী কিশোরী রয়েছে এমন দরিদ্র ও অতি দরিদ্র পরিবারের সাথে প্রকল্প বাস্তবায়ন করা। কৌশল গত অংশীদারিত্বেও ভিত্তিতে সরকারের ৮টিম ন্ত্রনালয়ের (স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যান , কৃষি.মৎস্য, প্রাণিসম্পদ, সমাজকল্যান, মহিলা ও শিশুবিষয়ক, দূর্যোগ ও পূনবার্সন এবং স্থানীয়সরকার) সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে প্রকল্প বাস্তবায়নকরা। কারিগরী সহায়তায়-  সেভ দ্যা চিলড্রেন ইন্টারন্যাশনাল।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ